মধ্যম আয়ের দেশ হলে রফতানিতে প্রভাব পড়বে না :: বাণিজ্যমন্ত্রী

0
ফাইল ছবি

অনলাইন ডেস্ক,প্রেসবিডি২৪.কম :: মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হলে রফতানিতে কোনো প্রভাব পড়বে না বলে জানিয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ।

তিনি বলেন, অনেকে নেতিবাচক বক্তব্য দেন। যদি ডেভেলপিং কান্ট্রিতে রূপান্তরিত হই তাহলে আমাদের রফতানি কমে যাবে।

কিন্তু মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র আমাদের পোশাকশিল্পে রফতানি পণ্যের শুল্কমুক্ত ও কোটামুক্ত (জিএসপি) সুবিধা স্থগিত রাখলেও ইউরোপীয় ইউনিয়নসহ
অনেক দেশে যেন আমরা এ সুবিধা পাই সেই বিষয়ে পরিকল্পনা নেব।

শুক্রবার রাতে হোটেল সোনারগাঁওয়ে আন্তর্জাতিক কাস্টমস দিবস উপলক্ষে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) আয়োজিত এক সেমিনারে এ কথা বলেন তিনি।

জাতীয বাজেট বাস্তবায়নে এখন আর আগের মতো বিদেশি অর্থের ওপর নির্ভর করতে হয় না জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, স্বাধীনতার ৫০ বছর পূর্তির বছর ২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত করার লক্ষ্যে পরিকল্পনা অনুযায়ী এগোচ্ছে সরকার। মধ্যম আয়ের দেশ হওয়ার জন্য যে তিনটি লক্ষ্য পূরণ করতে হয়, ২০২১ সালের মধ্যেই সরকার সেগুলো পূরণ করবে।

মধ্যম আয়ের দেশ হওয়ার জন্য মাথাপিছু আয়, মানবসম্পদের উন্নয়ন ও অর্থনৈতিক ভূমিকা- এই তিন শর্তের কথা উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, ‘এ বছরের মার্চ মাসে এটা নিরীক্ষণ করা হবে।

২০২১ সালের মধ্যে আমরা মধ্যম আয়ের দেশে রূপান্তরিত হব এবং ২৪ সালে এটা কার্যকর হবে।’

বাংলাদেশ এখন উন্নয়নের রোল মডেল এবং নিজের সামর্থ্যে এগিয়ে যাচ্ছে বলে মন্তব্য করেন বাণিজ্যমন্ত্রী।

ক্ষমতাসীন দলের উপদেষ্টামণ্ডলীর এই সদস্য বলেন, ‘বর্তমানে নিজস্ব অর্থায়নে বাজেট বাস্তবায়ন হচ্ছে। এখন আর বাজেট বাস্তবায়নে বিদেশিদের অর্থের অপেক্ষা করতে হয় না। আমরা মধ্যম আয়ের দেশে পা দিয়েছি। পুরোপুরিভাবে মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হলে রফতানিতে আমাদের কোনো প্রভাব পড়বে না।’

এনবিআরের চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়ার সভাপতিত্বে সেমিনারে আরো উপস্থিত ছিলেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত, প্রধানমন্ত্রীর অর্থনৈতিক উপদেষ্টা ড. মসিউর রহমান, অর্থ মন্ত্রণালয় সংক্রান্ত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ড. আব্দুর রাজ্জাক, ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন বাংলাদেশ শিল্প ও বণিক সমিতি ফেডারেশনের (এফবিসিসিআই) সভাপতি মো. শফিউলইসলাম মহিউদ্দিন, ঢাকা কাস্টমস হাউসের কমিশনার প্রকাশ দেওয়ান, শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদফতরের মহাপরিচালক ড. মইনুল খান প্রমুখ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here