সিনহা হত্যা মামলায় ওসি প্রদীপসহ সব আসামির জেল হাজতে

0

টেকনাফে পুলিশের গুলিতে সাবেক সেনা কর্মকর্তা সিনহা মৃত্যুর মামলায় সাবেক ওসি প্রদীপ কুমার দাশ ও অপর ৮ আসামিকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন আদালত।

বৃহস্পতিবার (০৬ আগস্ট) সন্ধ্যায় তাকে কক্সবাজার আদালতে হাজির করা হলে বিচারক এ আদেশ দেন। সিনহা হত্যার মামলার তদন্তের জন্য আদালতে রিমান্ডের আবেদন করতে পারে র‌্যাব বলে জানা গেছে।

জেলা হাজতে পাঠানো আসামীরা হলেন, টেকনাফের সাবেক ওসি প্রদীপ কুমার দাশ, বাহারছরা শামলাপুর পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের প্রত্যাহারকৃত পরিদর্শক লিয়াকত আলী (৩১), এসআই নন্দলাল রক্ষিত, কনস্টেবল সাফানুর করিম, কনস্টেবল কামাল হোসেন, কনস্টেবল আবদুল্লাহ আল মামুন, এএসআই লিটন মিয়া, এসআই টুটুল। করোনাকালীন হাইকোর্টের নির্দেশনা অনুযায়ী ৪ জন করে ২ দফায় আসামীদের হাজত খানা থেকে কাঠগড়ায় আনা হয়।

এর আগে, পুলিশ চেকপোস্টে গুলিতে সাবেক সেনা কর্মকর্তা সিনহা নিহতের ঘটনায় ওসি প্রদীপ কুমার দাশ চট্টগ্রামে আত্মসমর্পণ করেন। পর সেখান থেকে তাকে কক্সবাজার আদালতে নিয়ে আসা হয়।

সকালে তাকে আটক করে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ। এরপর দুপুরে টেকনাফ থানার সাবেক ওসিকে নিয়ে কক্সবাজারের উদ্দেশে রওয়ানা হয় পুলিশ। সিনহার বোনের করা মামলার দুই নম্বর আসামি প্রদীপকে গ্রেফতার দেখানোর বিষয়ে নিশ্চিত করে কিছু জানানো হয়নি।

সিএমপি জানিয়েছে, আদালতের নির্দেশে হত্যা মামলাটি তদন্তের দায়িত্ব পেয়েছে র‌্যাব। এ কারণে প্রদীপ কুমারকে র‌্যাবের কাছে হস্তান্তর করার পর, আদালতের মাধ্যমে এই পদক্ষেপ নেয়া হলো।

গত ৫ জুলাই রাতে সাবেক মেজর সিনহা মো. রাশেদ খান নিহতের ঘটনাকে কেন্দ্র করে টেকনাফ থানার ওসি প্রদীপ কুমার দাসকে প্রত্যাহার কর হয়।

গত ৩১ জুলাই ঈদের আগের রাতে টেকনাফের বাহারছড়া ইউনিয়নের শামলাপুর পুলিশ চেকপোস্টে গুলিতে নিহত হন সাবেক মেজর সিনহা মো. রাশেদ খান (৩৬)। তার গাড়িতে থাকা তার সঙ্গী সিফাতের ভাষ্যমতে, সিনহাকে কোনোরূপ জিজ্ঞাসাবাদ ছাড়াই চেকপোষ্টে গাড়ি থেকে নামতে বলে চার রাউন্ড গুলি ছুঁড়ে হত্যা করেন পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই লিয়াকত আলী।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here