মৃত্যুর আগে অন্যের গায়ে থুথু ছিটালেন করোনায় আক্রান্ত ব্যক্তি!

0


অনলাইন ডেস্ক

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে প্রতিদিনই বাড়ছে মৃত্যুর সংখ্যা। বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া এই ভাইরাস মানুষ থেকে মানুষের মাঝে সংক্রমণ ঘটায়। ফলে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে এই ভাইরাস প্রতিরোধের চেষ্টা করা হচ্ছে। এমন পরিস্থিতিতে করোনায় আক্রান্ত এক ব্যক্তি মৃত্যুর আগে অন্যদের গায়ে থুথু ছিটিয়ে তাদের সংক্রমিত করার চেষ্টায় লিপ্ত হয়েছেন।

সম্প্রতি এমন একটি ভয়ঙ্কর ভিডিও ভাইরাল হয়েছে।

ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে থাইল্যান্ডে করোনায় আক্রান্ত এক ব্যক্তি ট্রেনে অন্য একজন যাত্রীর মুখে থুথু দিচ্ছেন। এর কিছু সময় পরেই মারা যান ওই লোক।

থাইল্যান্ডের রাজধানী ব্যাংকক থেকে দক্ষিণাঞ্চলীয় শহর নারাটিওয়াত যাওয়ার ট্রেনে মঙ্গলবার আনান সাহোহ (৫৬) নামের ওই ব্যক্তির মৃত লাশ পাওয়া যায়। পরে পরীক্ষায় দেখা গেছে তিনি করোনায় আক্রান্ত ছিলেন।

যাত্রা শুরু করার আগের সিসিটিভি ফুটেজে দেখা যায় সাহোহ ব্যাংককের ব্যাং সু স্টেশনে টিকিট কিনে অজ্ঞাতপরিচয় এক ব্যক্তির গায়ে থুথু মারছেন।

তারপরে তিনি ট্রেনে চড়ার জন্য বাধ্যতামূলক তাপমাত্রা পরীক্ষা দিয়েছিলেন। এরপর সেখানে তাকে বমি এবং কাশি করতে দেখা গিয়েছিল।

নিউইয়র্ক টাইমসের প্রতিবেদনে বলা হয়, ট্রেনটি থাপ সাকা জেলা স্টেশনে পৌঁছালে সাহোহ একটি শৌচাগারের সামনে গিয়ে ঢলে পড়েন এবং কিছু সময় পরেই মৃত্যুবরণ করেন। মেডিক্যাল কর্মীরা তার নমুনা পরীক্ষা করেছিলেন, রিপোর্টে তাকে নিশ্চিত করোনায় আক্রান্ত হিসেবে পাওয়া গেছে।

থাইল্যান্ডের স্টেট রেলওয়ের পরিচালক থাকুন ইন্ট্রাচম বলেছেন যে, তারা এখন স্ট্রাফ্যানার নামের এক যাত্রীকে খুঁজে বের করার চেষ্টা করছেন, যিনি সম্ভবত এই ব্যক্তির থুথু হামলার শিকার হয়েছিলেন।

তিনি বলেন, ‘আমরা এখন থুথু হামলার শিকার ওই ব্যক্তিকে নিয়ে উদ্বিগ্ন, ফুটেজে তার গায়ে থুথু ছিটানোর দৃশ্য দেখা গেছে। প্রাথমিকভাবে, আমরা রেলপথের সাথে সমন্বয় করেছি কিন্তু তারা এখনও তাকে খুঁজে পায়নি। আমরা ঘোষণা করতে চাই যে কেউ যদি তাকে চেনেন বা তিনি যদি সংবাদটি শুনে থাকেন তবে তার উচিত দয়া করে অবিলম্বে হাসপাতালে যাওয়া। ‘


Warning: A non-numeric value encountered in /home/presvdfgsbd24/public_html/bangla/wp-content/themes/Newspaper/includes/wp_booster/td_block.php on line 1009

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here